Thursday 30 May 2024




সর্বশেষ













সোনার বার কিনে প্রতারিতের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার তিন ব্যাক্তিকে গ্রেফতার দিনহাটা থানার

উত্তরের হাওয়া, ২৯ মে: সোনার বার কিনে প্রতারিত। তার পরেই দিনহাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের, গ্রেফতার তিন ব্যক্তি। বুধবার সকাল সাড়ে এগারোটা নাগাদ কোচবিহার জেলা পুলিশ সুপার দ্যুতিমান ভট্টাচার্য্য জানান, গত ১৩ই মে বিহারের ঘুসকুড়ির বাসিন্দা মনীশ কুমার দিনহাটা থানায় ফোন করে একটি লিখিত অভিযোগ জমা করেন। তিনি লিখিত অভিযোগে জানান যে তার কাছে একটি নম্বর থেকে ফোন আসে এবং তাকে ফোন করা ব্যাক্তি নিজের নাম রাজু বলে পরিচয় দেন। পাশাপাশি রাজু, মনীশকে জানায় যে মাটি খুঁড়তে গিয়ে একটি সোনার বার পেয়েছেন। হোয়াটসঅ্যাপ মারফত সেই সোনার বারের ছবি ও পাঠিয়ে দেন মনীশকে। এরপর রাজু বলে যে বাজার মূল্যের থেকে সেই সোনার বার কম মূল্যে বিক্রি করবে। সেই মোতাবেক মনীশ সোনার বার কিনতে রাজি হয় এবং গত ১৫ ই মে রাজুর দেওয়া ঠিকানা মতো দিনহাটা আসেন। মনীশ দিনহাটায় এসে তিন জনের সঙ্গে দেখা করেন তাদের ভাড়া বাড়িতে। সেখানে সোনার বারের দাম ঠিক করেন ৬লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা। তারপর মনীশ বিহার ফিরে যান এবং গত ১৯মে আবারও দিনহাটা এসে ৬লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা দিয়ে সোনার বারটি ক্রয় করেন এবং বিহারে ফিরে যান। পরবর্তী সময়ে বিহারে ফিরে স্থানীয় এক গহনার দোকানদারের কাছে সোনার বারটি পরীক্ষা করালে জানতে পারেন সোনার বারটি নকল। এরপর সোনার বার কিনে প্রতারিত হয়ে আবারও দিনহাটা থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে মনিশ। সেই ঘটনার তদন্তে নেমে দিনহাটা থানার পুলিশ সফিকুল ইসলাম, ফখরুদ্দিন ও এনামুল হক নামে তিন জনকে গ্রেফতার করে। আজ বুধবার তিনজনকেই দিনহাটা মহকুমা আদালতে হাজির করে ১৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানানো হবে বলেন জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার।

Wednesday

সোনার বার কিনে প্রতারিতের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার তিন ব্যাক্তিকে গ্রেফতার দিনহাটা থানার

Wednesday : উত্তরের হাওয়া, ২৯ মে: সোনার বার কিনে প্রতারিত। তার পরেই দিনহাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের, গ্রেফতার তিন ব্যক্তি। বুধবার সকাল সাড়ে এগারোটা নাগাদ কোচবিহার জেলা পুলিশ সুপার দ্যুতিমান ভট্টাচার্য্য জানান, গত ১৩ই মে বিহারের ঘুসকুড়ির বাসিন্দা মনীশ কুমার দিনহাটা থানায় ফোন করে একটি লিখিত অভিযোগ জমা করেন। তিনি লিখিত অভিযোগে জানান যে তার কাছে একটি নম্বর থেকে ফোন আসে এবং তাকে ফোন করা ব্যাক্তি নিজের নাম রাজু বলে পরিচয় দেন। পাশাপাশি রাজু, মনীশকে জানায় যে মাটি খুঁড়তে গিয়ে একটি সোনার বার পেয়েছেন। হোয়াটসঅ্যাপ মারফত সেই সোনার বারের ছবি ও পাঠিয়ে দেন মনীশকে। এরপর রাজু বলে যে বাজার মূল্যের থেকে সেই সোনার বার কম মূল্যে বিক্রি করবে। সেই মোতাবেক মনীশ সোনার বার কিনতে রাজি হয় এবং গত ১৫ ই মে রাজুর দেওয়া ঠিকানা মতো দিনহাটা আসেন। মনীশ দিনহাটায় এসে তিন জনের সঙ্গে দেখা করেন তাদের ভাড়া বাড়িতে। সেখানে সোনার বারের দাম ঠিক করেন ৬লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা। তারপর মনীশ বিহার ফিরে যান এবং গত ১৯মে আবারও দিনহাটা এসে ৬লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা দিয়ে সোনার বারটি ক্রয় করেন এবং বিহারে ফিরে যান। পরবর্তী সময়ে বিহারে ফিরে স্থানীয় এক গহনার দোকানদারের কাছে সোনার বারটি পরীক্ষা করালে জানতে পারেন সোনার বারটি নকল। এরপর সোনার বার কিনে প্রতারিত হয়ে আবারও দিনহাটা থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে মনিশ। সেই ঘটনার তদন্তে নেমে দিনহাটা থানার পুলিশ সফিকুল ইসলাম, ফখরুদ্দিন ও এনামুল হক নামে তিন জনকে গ্রেফতার করে। আজ বুধবার তিনজনকেই দিনহাটা মহকুমা আদালতে হাজির করে ১৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানানো হবে বলেন জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার।

2024-05-29

চারা বিতরণ করে কোচবিহারের রাজকন্যা গায়ত্রী দেবীর ১০৫ তম জন্মদিন পালন

Thursday : উত্তরের হাওয়া, ২৩মে: প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও আস্থা ফাউন্ডেশন এর পক্ষ থেকে আজ আজকের দিনে ২৩ মে কোচবিহারে রাজকন্যা ও জয়পুরের রাজমাতা গায়ত্রী দেবীর ১০৫ তম জন্মজয়ন্তী পালন করা হয় । রাজবাড়ী সিংহ দুয়ারের সামনে সেই উপলক্ষে রাজকন্যা গায়ত্রী দেবীর ফটোতে ফুল নিবেদন ধূপকাঠি মোমবাতি জ্বালিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। তার সাথে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ রাখার জন্য পথ চলতি মানুষদের হাতে একটি করে চারা গাছ তুলে দেওয়া হয়। পথ চলতি সকল মানুষদের মিষ্টিমুখের ব্যবস্থা করা হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে। প্রচন্ড গরম থাকায় প্রায় ১৫০০ জন মানুষের হাতে শরবত তুলে দেওয়া হয় জন্মদিন উপলক্ষে। সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, অনেক মানুষ গায়ত্রী দেবীকে ভুলে গিয়েছে। সেই জন্য আস্তা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে জন্মদিনটি পালন করা হয় প্রতি বছর। সাথে সকল সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সকলে জানতে পারে কোচবিহারের রাজকন্যা গায়ত্রী দেবীর আজ শুভ জন্মদিন।

2024-05-23

কোচবিহারের সুইমিংপুলের ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে সরব

Thursday : উত্তরের হওয়া, ২৩ মে: উদ্বোধনের কয়েক দিনের পরেই বন্ধ কোচবিহারের বহু বিতর্কিত সুইমিং পুল। এবং তার মাঝেই ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে মুখরিত হলেন সুইমিং পুলের মেম্বার সহ ছাত্রছাত্রীরা। আজ সকালে কোচবিহার সাগরদিঘী স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার ঘাটে বিক্ষোভ দেখান তারা। অবিলম্বে অস্বাভাবিক হারে ফি কমানোর দাবি জানিয়েছেন মেম্বার সহ ছাত্রছাত্রীরা। উল্লেখ্য ২০২৩ সালের আগস্ট মাসে চালু হয়েছিল কোচবিহারের বহু প্রতিক্ষিত সুইমিংপুল। তারপরে প্রায় তিন মাস চলতে না চলতেই বন্ধ হয়ে যায় রক্ষণাবেক্ষণ করার জন্য। কিন্তু কয়েক মাস কেটে যাওয়ার পরেও সুইমিং পুল চালু হয়নি। বর্তমানে সুইমিংপুল পড়ে রয়েছে জলশূন্য অবস্থায়। এক বছরের মেম্বারশিপ চাঁদা দিয়েও তিন মাসের বেশি সুইমিংপুল ব্যবহার করতে পারেনি মেম্বাররা। চলতি বছর পুনরায় মেম্বারশিপলে ক্ষেত্রে কোথাও দ্বিগুণ আবার কোথাও চার গুণ টাকা বৃদ্ধি করা হয়েছে। তারই প্রতিবাদে এই আন্দোলন বলে জানান অভিভাবকেরা।

2024-05-23

সাহেবগঞ্জ থানা পুলিশের হেফাজতে থাকা ৪ ব্যক্তির কথা অনুসরণ করে উদ্ধার ১টি দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র ও ১ রাউন্ড গুলি

Tuesday : উত্তরের হাওয়া, ২১মে: সাহেবগঞ্জ থানা পুলিশের হেফাজতে থাকাকালীন ৪ ব্যক্তির কাছ থেকে উদ্ধার আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি। গত ১৭/০৫/২০২৪ কোচবিহার জেলা পুলিশ - এর সাহেবগঞ্জ থানা গোপন সূত্রে খবর পেয়ে চৌধুরীহাট অঞ্চলের কন্ট্রোলেরহাট থেকে ডাকাতি করার উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়া ৪ জন ব্যক্তিকে আটক করে ১ টি অগ্নেয়াস্ত্র সহ ২ রাউন্ড তাজা গুলি এবং ১ টি চপারসহ ১ টি লোহার রড উদ্ধার করে। ধৃতদের দিনহাটা দায়রা আদালত থেকে পুলিশ হেফাজতে নেয়। হেফাজতে থাকা ধৃত ব্যক্তিদের কথা অনুসরণ করে মঙ্গলবার গভীররাত্রে কোচবিহার জেলার সাহেবগঞ্জ থানা ধৃতদের লুকিয়ে রাখা আরও ১ টি দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র এবং ১ রাউন্ড তাজা গুলি উদ্ধার করে।

2024-05-21

দিনহাটা

সোনার বার কিনে প্রতারিতের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার তিন ব্যাক্তিকে গ্রেফতার দিনহাটা থানার

Wednesday : উত্তরের হাওয়া, ২৯ মে: সোনার বার কিনে প্রতারিত। তার পরেই দিনহাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের, গ্রেফতার তিন ব্যক্তি। বুধবার সকাল সাড়ে এগারোটা নাগাদ কোচবিহার জেলা পুলিশ সুপার দ্যুতিমান ভট্টাচার্য্য জানান, গত ১৩ই মে বিহারের ঘুসকুড়ির বাসিন্দা মনীশ কুমার দিনহাটা থানায় ফোন করে একটি লিখিত অভিযোগ জমা করেন। তিনি লিখিত অভিযোগে জানান যে তার কাছে একটি নম্বর থেকে ফোন আসে এবং তাকে ফোন করা ব্যাক্তি নিজের নাম রাজু বলে পরিচয় দেন। পাশাপাশি রাজু, মনীশকে জানায় যে মাটি খুঁড়তে গিয়ে একটি সোনার বার পেয়েছেন। হোয়াটসঅ্যাপ মারফত সেই সোনার বারের ছবি ও পাঠিয়ে দেন মনীশকে। এরপর রাজু বলে যে বাজার মূল্যের থেকে সেই সোনার বার কম মূল্যে বিক্রি করবে। সেই মোতাবেক মনীশ সোনার বার কিনতে রাজি হয় এবং গত ১৫ ই মে রাজুর দেওয়া ঠিকানা মতো দিনহাটা আসেন। মনীশ দিনহাটায় এসে তিন জনের সঙ্গে দেখা করেন তাদের ভাড়া বাড়িতে। সেখানে সোনার বারের দাম ঠিক করেন ৬লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা। তারপর মনীশ বিহার ফিরে যান এবং গত ১৯মে আবারও দিনহাটা এসে ৬লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা দিয়ে সোনার বারটি ক্রয় করেন এবং বিহারে ফিরে যান। পরবর্তী সময়ে বিহারে ফিরে স্থানীয় এক গহনার দোকানদারের কাছে সোনার বারটি পরীক্ষা করালে জানতে পারেন সোনার বারটি নকল। এরপর সোনার বার কিনে প্রতারিত হয়ে আবারও দিনহাটা থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে মনিশ। সেই ঘটনার তদন্তে নেমে দিনহাটা থানার পুলিশ সফিকুল ইসলাম, ফখরুদ্দিন ও এনামুল হক নামে তিন জনকে গ্রেফতার করে। আজ বুধবার তিনজনকেই দিনহাটা মহকুমা আদালতে হাজির করে ১৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানানো হবে বলেন জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার।

সাহেবগঞ্জ থানা পুলিশের হেফাজতে থাকা ৪ ব্যক্তির কথা অনুসরণ করে উদ্ধার ১টি দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র ও ১ রাউন্ড গুলি

Tuesday : উত্তরের হাওয়া, ২১মে: সাহেবগঞ্জ থানা পুলিশের হেফাজতে থাকাকালীন ৪ ব্যক্তির কাছ থেকে উদ্ধার আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি। গত ১৭/০৫/২০২৪ কোচবিহার জেলা পুলিশ - এর সাহেবগঞ্জ থানা গোপন সূত্রে খবর পেয়ে চৌধুরীহাট অঞ্চলের কন্ট্রোলেরহাট থেকে ডাকাতি করার উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়া ৪ জন ব্যক্তিকে আটক করে ১ টি অগ্নেয়াস্ত্র সহ ২ রাউন্ড তাজা গুলি এবং ১ টি চপারসহ ১ টি লোহার রড উদ্ধার করে। ধৃতদের দিনহাটা দায়রা আদালত থেকে পুলিশ হেফাজতে নেয়। হেফাজতে থাকা ধৃত ব্যক্তিদের কথা অনুসরণ করে মঙ্গলবার গভীররাত্রে কোচবিহার জেলার সাহেবগঞ্জ থানা ধৃতদের লুকিয়ে রাখা আরও ১ টি দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র এবং ১ রাউন্ড তাজা গুলি উদ্ধার করে।

গরমে কৃষি শ্রমিকের আকাল দিনহাটা জুড়ে

Saturday : উত্তরের হাওয়া, দিনহাটা, ১৮মে: “প্রচন্ড গরমে জমিতে কাজই করতে চাইছে না কোন শ্রমিক। বাধ্য হয়ে নিজেকেই পাট খেতে নিড়ানি দিতে হচ্ছে। কিন্তু একা আর কত পারা যায়?” - নিজের পাটখেতের পাশের গাছের ছায়ায় জিরিয়ে নিতে নিতেই ক্লান্ত গলায় জানালেন দিনহাটা ২ ব্লকের শুকারুরকুঠি এলাকার চাষি রথীন্দ্র বর্মন। শুধুমাত্র রথীন্দ্র বাবু নন, কোচবিহার জেলার দিনহাটা মহকুমার বিস্তির্ন এলাকার কৃষকদের সাথে কথা বললেই ধরা পড়বে তীব্র গরমে কৃষিশ্রমিকের সংকট ও তা নিয়ে কৃষকদের চুড়ান্ত বিড়ম্বনার বর্তমান ছবি। কৃষকরা জানালেন, গত এক মাসে দিনহাটা মহকুমা জুড়ে বৃষ্টি হয়নি বললেই চলে। এছাড়া প্রায় প্রতিদিনই উষ্ণতার পারদ চড়ছে পাল্লা দিয়ে। এরফলে ধান, পাট ও ভুট্টা খেতে জলসেচ করতে হচ্ছে নিয়মিত। পাশাপাশি পাট ও ধান খেতে নিড়ানি দেওয়া ও ভুট্টার পরিচর্যায় গুরুত্ব বেশী দিতে হচ্ছে। যার জন্য প্রয়োজন হচ্ছে প্রচুর পরিমানে কৃষিশ্রমিকের। অথচ তীব্র গরমে কৃষি খেতে কাজ করতে চাইছেন না অনেকে। এমনকি সুযোগ বুঝে কয়েক গুন বেশি পারিশ্রমিকও দাবী করছেন একাংশ। এমন পরিস্হিতিতে তীব্র গরমে বেকায়দায় পড়েছেন স্হানীয় কৃষকরা। যাদের সামর্থ্য রয়েছে তারা বেশি পারিশ্রমিকেই কাজ করাচ্ছেন। যারা পারছেন না, তাঁদের অনেকেরই ফসল পরিচর্যার অভাবে নষ্ট হচ্ছে। এতে সামগ্রিকভাবে আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। সমস্যার কথা মেনে দিনহাটা ২ ব্লক সহকৃষিঅধিকর্তা শুভাশীষ চক্রবর্তীর মন্তব্য, ধান, পাটের যথাযথ বৃদ্ধির জন্য বৃষ্টি খুব প্রয়োজন। তাঁর সংযোজন, এলাকার কৃষিকাজের অনেকটাই মনুষ্যশ্রম নির্ভর। তবে উন্নত প্রযুক্তি ও কৃষিকাজে যন্ত্রের ব্যবহার বাড়াতে সারাবছরই উদ্যোগ নেওয়া হয়। কৃষকরা তা দুহাতে গ্রহনও করছেন। এভাবেই ক্রমশ ভরা মরশুমে শ্রমিক সমস্যা মেটানো যাবে বলে আশাবাদী। দিনহাটা ১, দিনহাটা ২, সিতাই ও দিনহাটা পুরসভা নিয়ে গঠিত সুবিশাল দিনহাটা মহকুমা। প্রত্যন্ত এই মহকুমার অর্থনীতি কৃষি নির্ভর। সারাবছর মুলত ধান, পাট, ভুট্টা, তামাক উৎপাদন করেই জীবিকা নির্বাহ করেন অধিকাংশ কৃষক। যাদের জমি নেই তাদের একটা বড় অংশ কৃষিশ্রমিকের কাজ করতেন। কিন্তু সারা বছর কাজের অভাব, যথোপযুক্ত পারিশ্রমিকের অভাব ও কৃষিকাজের প্রবল খাটুনি সহ নানা কারনে থাকায় জমিহীন অনেক শ্রমিকই ভিনরাজ্যে কাজে যান। এরফলে কৃষিকাজের মরশুমেও অনেকসময়ই শ্রমিকের অভাবে ভুগতে হয় কৃষকদের। চলতি মরশুমে অপর্যাপ্ত বৃষ্টি ও অত্যধিক গরম শ্রমিক সংকটের সমস্যা আরও বাড়িয়েছে। তীব্র গরমে কাজ করতে চাইছেন না অনেকেই। দিনহাটা ২ ব্লকের কিশামতদশগ্রাম গ্রামপঞ্চায়েতের গোবড়াছড়া দশগ্রামের চাষি নিত্যানন্দ বর্মনের কথায়, বাড়িতে একা মানুষ প্রায় ৪ বিঘা জমিতে পাট চাষ করেছি। অনাবৃষ্টি ও গরমে ঘনঘন জলসেচ করতে হচ্ছে। আগাছা বেশি হচ্ছে বলে নিড়ানিও দিতে হচ্ছে। সহজে শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছেনা। ফসলের ক্ষতির কথা ভেবে বেশি টাকা খরচা করতে হচ্ছে। মরশুম শেষে লাভ কতটা হবে, তা নিশ্চিত নই। কদমতলা এলাকার জগদীশ দাসের কথায়, দু বিঘা জমিতে পাট করেছি। যেটুকু পারছি নিজে করছি। একা একা জলসেচ ও নিড়ানি দিয়ে উঠতে পারিনি। কিছু অংশের পাট শুকিয়েও গেছে। বেশি পারিশ্রমিক দিয়ে শ্রমিক নেওয়ার সামর্থ্য নেই। দিনহাটা ভিলেজ ২ এলাকার চাষি প্রদীপ সিং এর কথায়, বর্তমানে কৃষকদের দম ফেলবার সময় নেই। তীব্র এই গরমে পাট ও ভুট্টার পরিচর্যা তো বটেই, অনেকের ধানও পাকতে শুরু করেছে। এই অবস্হায় শ্রমিকদের কাজ করতে না চাওয়ায় সমস্যায় ভুগতে হচ্ছে। এমনকি ব্যয়ও বাড়ছে। যদিও মহকুমার বিভিন্ন এলাকায় কৃষি শ্রমিকদের সাথে এবিষয়ে কথা বলতেই নাম না দেওয়ার শর্তে তাদের সাফাই, এই গরমে ছায়ায় ও ঠান্ডা ঘরে থাকতেই হাঁসফাস করছেন মানুষ। এই অবস্হায় কড়া রোদে জমিতে কাজ করতে গিয়ে অসুস্হ হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। তাই যাদের অন্য উপায় আছে তারা কাজ করছেন না। যারা নিরুপায় তারাও বিপদের কথা ভেবেই বেশি পারিশ্রমিক নিচ্ছেন।

ফের বড়ো সাফল্য সাহেবগঞ্জ থানার

Friday : উত্তরের হাওয়া, ১৭ মে: ফের বড়ো সাফল্য সাহেবগঞ্জ থানার। অস্ত্রসহ ডাকাতির উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়া ৪ ব্যক্তিকে আটক করল কোচবিহার জেলা পুলিশের সাহেবগঞ্জ থানা। বৃহস্পতিবার গভীর রাত্রে কোচবিহার জেলা পুলিশের সাহেবগঞ্জ থানা গোপন সূত্রে খবর পেয়ে চৌধুরীহাট গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত কন্ট্রোলেরহাটে ডাকাতি করার উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়া ৪ জন ব্যক্তিকে আটক করে এবং তাদের কাছ থেকে ১ টি অবৈধ্য আগ্নেয়াস্ত্র সহ ২ রাউন্ড তাজা গুলি এবং ১ টি চপারসহ ১ টি লোহার রড উদ্ধার হয়। ধৃতদের গ্রেপ্তার করে নির্দিষ্ট আইনে মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে কোচবিহার জেলা পুলিশের সাহেবগঞ্জ থানা।

বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবসে দিনহাটা সংহতি ময়দানে রক্তদান শিবির করলো SFI ও DYFI

Wednesday : উত্তরের হাওয়া, ৮ মেঃ ভয়াবহ রক্ত সংকট মেটাতে প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও আজ ৮ই মে বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবসে দিনহাটা সংহতি ময়দানে স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির আয়োজিত হলো ভারতের ছাত্র ফেডারেশন ও ভারতের গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশন দিনহাটা লোকাল কমিটির উদ্যোগে।এই রক্তদান শিবিরের পূর্বে সংগঠনদ্বয়ের পক্ষ থেকে পয়লা মে থেকে ৭ই মে পর্যন্ত থ্যালাসেমিয়া নিয়ে বিশেষ সচেতনাতামূলক প্রচার অভিযান করা চলে ।উপস্থিত ছিলেন ড: নির্মল্য মন্ডল,বিশিষ্ট অধ্যাপক জয়দীপ সরকার,বিশিষ্ট কবি শুভাশিস দাস,গণতান্ত্রিক আন্দোলনের নেতৃত্ব প্রবীর পাল,এমদাদুল হক,এসএফআই দিনহাটা লোকাল কমিটির সম্পাদক আবির দেব,সভাপতি সুব্রত রায়,জেলা সভাপতি প্রাঞ্জল মিত্র,জেলা কমিটির সদস্য আকাশ সাহা,ডিওয়াইএফআই দিনহাটা লোকাল কমিটির সম্পাদক তথা জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য শুভ্রালোক দাস,সভাপতি উজ্জ্বল গুহ,রাজ্য কমিটির সদস্য পূরবী মিত্র,জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য মানস বর্মন,ডিওয়াইএফআই নেতৃত্ব সোহম চক্রবর্ত্তী,সৌরভ সরকার,অনিকেশ বর্মন,কৌশিক রায়,মনিরুল হক,অভিক সরকার সহ অন্যান্যরা।আজকের এই শিবিরে ৭ জন যুবতী রক্তদাতা সহ মোট ৪১ জন রক্তদান করেন।সংগঠণের তরফে সুস্থ পৃথিবী গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রত্যেক রক্তদাতার হাতে গাছের চারা তুলে দেওয়া হয়।ডিওয়াইএফআই নেতৃত্ব শুভ্রালোক দাস জানান প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আমরা বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবসে রক্তদান শিবির করলাম ও বিগত সাতদিন ধরে আমাদের থ্যালাসেমিয়া নিয়ে বিশেষ সচেতনতা মূলক প্রচার অভিযান চলেছে।শুধু আজকের এই শিবির নয় ধারাবাহিক ভাবে আমরা সারা বছর রোগীদের প্রয়োজনে রক্তদান করে থাকি।

কোচবিহার

সোনার বার কিনে প্রতারিতের অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার তিন ব্যাক্তিকে গ্রেফতার দিনহাটা থানার

Wednesday : উত্তরের হাওয়া, ২৯ মে: সোনার বার কিনে প্রতারিত। তার পরেই দিনহাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের, গ্রেফতার তিন ব্যক্তি। বুধবার সকাল সাড়ে এগারোটা নাগাদ কোচবিহার জেলা পুলিশ সুপার দ্যুতিমান ভট্টাচার্য্য জানান, গত ১৩ই মে বিহারের ঘুসকুড়ির বাসিন্দা মনীশ কুমার দিনহাটা থানায় ফোন করে একটি লিখিত অভিযোগ জমা করেন। তিনি লিখিত অভিযোগে জানান যে তার কাছে একটি নম্বর থেকে ফোন আসে এবং তাকে ফোন করা ব্যাক্তি নিজের নাম রাজু বলে পরিচয় দেন। পাশাপাশি রাজু, মনীশকে জানায় যে মাটি খুঁড়তে গিয়ে একটি সোনার বার পেয়েছেন। হোয়াটসঅ্যাপ মারফত সেই সোনার বারের ছবি ও পাঠিয়ে দেন মনীশকে। এরপর রাজু বলে যে বাজার মূল্যের থেকে সেই সোনার বার কম মূল্যে বিক্রি করবে। সেই মোতাবেক মনীশ সোনার বার কিনতে রাজি হয় এবং গত ১৫ ই মে রাজুর দেওয়া ঠিকানা মতো দিনহাটা আসেন। মনীশ দিনহাটায় এসে তিন জনের সঙ্গে দেখা করেন তাদের ভাড়া বাড়িতে। সেখানে সোনার বারের দাম ঠিক করেন ৬লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা। তারপর মনীশ বিহার ফিরে যান এবং গত ১৯মে আবারও দিনহাটা এসে ৬লক্ষ ৫৪ হাজার টাকা দিয়ে সোনার বারটি ক্রয় করেন এবং বিহারে ফিরে যান। পরবর্তী সময়ে বিহারে ফিরে স্থানীয় এক গহনার দোকানদারের কাছে সোনার বারটি পরীক্ষা করালে জানতে পারেন সোনার বারটি নকল। এরপর সোনার বার কিনে প্রতারিত হয়ে আবারও দিনহাটা থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে মনিশ। সেই ঘটনার তদন্তে নেমে দিনহাটা থানার পুলিশ সফিকুল ইসলাম, ফখরুদ্দিন ও এনামুল হক নামে তিন জনকে গ্রেফতার করে। আজ বুধবার তিনজনকেই দিনহাটা মহকুমা আদালতে হাজির করে ১৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানানো হবে বলেন জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার।

চারা বিতরণ করে কোচবিহারের রাজকন্যা গায়ত্রী দেবীর ১০৫ তম জন্মদিন পালন

Thursday : উত্তরের হাওয়া, ২৩মে: প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও আস্থা ফাউন্ডেশন এর পক্ষ থেকে আজ আজকের দিনে ২৩ মে কোচবিহারে রাজকন্যা ও জয়পুরের রাজমাতা গায়ত্রী দেবীর ১০৫ তম জন্মজয়ন্তী পালন করা হয় । রাজবাড়ী সিংহ দুয়ারের সামনে সেই উপলক্ষে রাজকন্যা গায়ত্রী দেবীর ফটোতে ফুল নিবেদন ধূপকাঠি মোমবাতি জ্বালিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। তার সাথে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ রাখার জন্য পথ চলতি মানুষদের হাতে একটি করে চারা গাছ তুলে দেওয়া হয়। পথ চলতি সকল মানুষদের মিষ্টিমুখের ব্যবস্থা করা হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে। প্রচন্ড গরম থাকায় প্রায় ১৫০০ জন মানুষের হাতে শরবত তুলে দেওয়া হয় জন্মদিন উপলক্ষে। সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, অনেক মানুষ গায়ত্রী দেবীকে ভুলে গিয়েছে। সেই জন্য আস্তা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে জন্মদিনটি পালন করা হয় প্রতি বছর। সাথে সকল সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সকলে জানতে পারে কোচবিহারের রাজকন্যা গায়ত্রী দেবীর আজ শুভ জন্মদিন।

কোচবিহারের সুইমিংপুলের ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে সরব

Thursday : উত্তরের হওয়া, ২৩ মে: উদ্বোধনের কয়েক দিনের পরেই বন্ধ কোচবিহারের বহু বিতর্কিত সুইমিং পুল। এবং তার মাঝেই ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে মুখরিত হলেন সুইমিং পুলের মেম্বার সহ ছাত্রছাত্রীরা। আজ সকালে কোচবিহার সাগরদিঘী স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার ঘাটে বিক্ষোভ দেখান তারা। অবিলম্বে অস্বাভাবিক হারে ফি কমানোর দাবি জানিয়েছেন মেম্বার সহ ছাত্রছাত্রীরা। উল্লেখ্য ২০২৩ সালের আগস্ট মাসে চালু হয়েছিল কোচবিহারের বহু প্রতিক্ষিত সুইমিংপুল। তারপরে প্রায় তিন মাস চলতে না চলতেই বন্ধ হয়ে যায় রক্ষণাবেক্ষণ করার জন্য। কিন্তু কয়েক মাস কেটে যাওয়ার পরেও সুইমিং পুল চালু হয়নি। বর্তমানে সুইমিংপুল পড়ে রয়েছে জলশূন্য অবস্থায়। এক বছরের মেম্বারশিপ চাঁদা দিয়েও তিন মাসের বেশি সুইমিংপুল ব্যবহার করতে পারেনি মেম্বাররা। চলতি বছর পুনরায় মেম্বারশিপলে ক্ষেত্রে কোথাও দ্বিগুণ আবার কোথাও চার গুণ টাকা বৃদ্ধি করা হয়েছে। তারই প্রতিবাদে এই আন্দোলন বলে জানান অভিভাবকেরা।

সাহেবগঞ্জ থানা পুলিশের হেফাজতে থাকা ৪ ব্যক্তির কথা অনুসরণ করে উদ্ধার ১টি দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র ও ১ রাউন্ড গুলি

Tuesday : উত্তরের হাওয়া, ২১মে: সাহেবগঞ্জ থানা পুলিশের হেফাজতে থাকাকালীন ৪ ব্যক্তির কাছ থেকে উদ্ধার আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি। গত ১৭/০৫/২০২৪ কোচবিহার জেলা পুলিশ - এর সাহেবগঞ্জ থানা গোপন সূত্রে খবর পেয়ে চৌধুরীহাট অঞ্চলের কন্ট্রোলেরহাট থেকে ডাকাতি করার উদ্দেশ্যে জড়ো হওয়া ৪ জন ব্যক্তিকে আটক করে ১ টি অগ্নেয়াস্ত্র সহ ২ রাউন্ড তাজা গুলি এবং ১ টি চপারসহ ১ টি লোহার রড উদ্ধার করে। ধৃতদের দিনহাটা দায়রা আদালত থেকে পুলিশ হেফাজতে নেয়। হেফাজতে থাকা ধৃত ব্যক্তিদের কথা অনুসরণ করে মঙ্গলবার গভীররাত্রে কোচবিহার জেলার সাহেবগঞ্জ থানা ধৃতদের লুকিয়ে রাখা আরও ১ টি দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র এবং ১ রাউন্ড তাজা গুলি উদ্ধার করে।

দিনে দুপুরে চুরি সুটকা বাড়ি ও মোয়ামারী গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়

Sunday : উত্তরের হাওয়া, ১১মে: দিনে দুপুরে চুরির ঘটনা ঘটলো কুচবিহার ১ নং ব্লকের অন্তর্গত সুকটাবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের দুধের কটি দেওয়ানবস এলাকায়। আজ দুপুর বারো নাগাদ মর্জিনা বিবির বাড়িতে কে বা কারা আলমারি ও ট্রাঙ্ক ভেঙ্গে নগদ ২৩০০ টাকা, ৯ ভরি রুপোর গহনা ও দুটি সোনার বালা নিয়ে চম্পট দেয়। মর্জিনা বিবি জানায়, তার স্বামী জাবেদ আলি ও তিনি কৃষি জমিতে কাজ করতে গিয়েছিল বাড়িতে এসে দেখেন সবকিছু ভেঙে পড়ে আছে। সাথে সাথে খবর দেওয়া হয় কোতোয়ালি থানায়। কিছু সময় পর পুলিশ এসে তদন্ত করে। গৃহকর্তা জাবেদ আলী কোচবিহার কোতোয়ালি থানায় এফ আই আর দায়ের করে। দেওয়ানবস এলাকার চুরির ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই পার্শ্ববর্তী মোয়ামারি অঞ্চলের ছোট আঠারোকোঠায় চুরির ঘটনা ঘটে। দিন দুপুরে এরকম চুরির ঘটনায় এলাকাবাসীরা খুবই আতঙ্কে রয়েছে। যদিও পুলিশ সূত্রে জানা যায় ঘটনা তদন্ত শুরু হয়েছে।

রাজ্য

গরমের ছুটির পালা শেষে আগামী ৩ জুন থেকে খুলছে স্কুল

Tuesday : উত্তরের হাওয়া, ২১ মে: খুব শীঘ্রই শেষ হতে চলেছে গরমের ছুটি। খুলে যাবে স্কুল কলেজ। আজ মঙ্গলবার গরমের ছুটি নিয়ে শিক্ষা দপ্তর জানিয়েছে যদি পরিস্থিতি ঠিক থাকে, তাহলে আগামী ৩ জুন থেকে স্কুল খুলবে। এর আগে শিক্ষা দপ্তরের তরফে জানানো হয়েছিল ২রা জুন থেকে রাজ্যে খুলবে স্কুল। আরো জানানো হয়েছিল গরমের ছুটির পর অতিরিক্ত ক্লাস করাতে হবে স্কুলগুলিকে। ইতিমধ্যেই তা নির্দেশিকা জারি হয়েছে। অন্যদিকে ভোটের কাজে স্কুল গুলিতে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকার ব্যবস্থাও হয়েছিল। কেন্দ্র বাহিনী থাকার পর বিভিন্ন স্কুলে কেমন অবস্থায় রয়েছে তা বিদ্যালয় পরিদর্শক এর থেকে জানতে চেয়েছিল শিক্ষা দপ্তর। উল্লেখ্য রাজ্যের ছুটির তালিকা অনুসারে চলতি বছর ৬ মে থেকে গরমের ছুটি পড়বে রাজ্য সরকারের স্কুল গুলিতে তা শেষ হবে ২ জুন। তবে আচমকাই তীব্র দাবদাহের জেরে পড়ুয়াদের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে ২২ এপ্রিল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে আগাম গরমের ছুটি ঘোষণা করেছিল রাজ্য। তবে এখন আবহাওয়া অনেকটাই বদল এসেছে। তাই এবার শেষ হতে চলেছে গরমের ছুটি। আগামী ৩ জুন থেকে খুলবে রাজ্যের স্কুল।

একাধিক দাবীতে বামনহাট রেল দাবী সমিতি তরফে ডেপুটেশন বামনহাট ষ্টেশন মাস্টারের কাছে

Sunday : উত্তরের হাওয়া, ৫ মেঃ বামনহাট রেল স্টেশনের পরিকাঠামোর উন্নয়ন ও রেলের কোচ সংখ্যা বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে বামনহাট রেল স্টেশনে ডেপুটেশন দিল দিনহাটা রেলযাত্রী অ্যাসোসিয়েশন ও বামনহাট রেল দাবী সমিতি । আজ বামনহাট রেল স্টেশনে পৌঁছায় দিনহাটা রেলযাত্রী অ্যাসোসিয়েশন ও বামনহাট রেল দাবী সমিতির সদস্যরা। বামনহাট ষ্টেশন মাষ্টারের মাধ্যমে আলিপুরদুয়ার ডিভিশন রেলওয়ে ম্যানেজারের কাছে একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন তারা। সেই স্মারক লিপিতে আট দফা দাবি জানানো হয়েছে। দাবিগুলি ছিল, বামনহাট-শিয়ালদহ উত্তরবঙ্গ এক্সপ্রেসের ১টি স্লিপার এবং ১টি জেনারেল কোচ বৃদ্ধি, শিলিগুড়ি -দিনহাটা, শিলিগুড়ি -বামনহাট ডিএমইউ পুনরায় চালু , বামনহাট রেল স্টেশনের ২ ও ৩ নং প্ল্যাটফর্ম সম্প্রসারণ , বামনহাট থেকে নিউ কোচবিহার রেলের বৈদ্যুতিকরণ দ্রুত শেষ করা সহ একাধিক দাবি জানানো হয় আজকের ডেপুটেশনে। এদিনের এই ডেপুটশনে উপস্থিত ছিলেন , দিনহাটা রেলযাত্রী অ্যাসোসিয়েশনের কনভেনর প্রফেসর ড. রাজা ঘোষ, জয় গোপাল ভৌমিক, বামনহাট রেল স্টেশন দাবি সমিতির শুভঙ্কর ভাদুরি সহ অন্যান্য সদস্যরা।

প্রকাশিত হবে মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল

Thursday : উত্তরের হাওয়া, ২মে: মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের অপেক্ষার অবসান হতে চলছে। ২০২৪ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হবে সকাল ৯টায়। মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের মনে খুশির হাওয়া। জীবনে প্রথমবার বোর্ডের পরীক্ষা রেজাল্ট প্রকাশিত হবে। কত স্বপ্নের জাল বুনে চলেছে পরীক্ষার্থীরা। তাদের নতুন জীবন শুরু হবে। কোন কোন বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করলে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে পারবে তারই প্রাথমিক পদক্ষেপ মাধ্যমিক পরীক্ষার রেজাল্ট। তাদের ফলাফল কেমন হবে গভীর আগ্রহে অপেক্ষা করে বসে আছে পরীক্ষার্থীরা। সকাল ৯-টায় মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল ঘোষণা করবে। সকাল ৯-টা ৪৫ মিনিট থেকে বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও অ্যাপের মাধ্যমে ফলাফল জানতে পারবেন পরীক্ষার্থীরা। আগামীকাল সকাল ১০-টা থেকে বিভিন্ন ক্যাম্প অফিসের মাধ্যমে স্কুলগুলিকে মার্কশিট ও শংসাপত্র দেওয়া হবে। এবছর মাধ্যমিক পরিক্ষার্থীর সংখ্যা ৯ লক্ষ ২৩ হাজারের কিছু বেশি ছাত্রছাত্রী। ২০২৪ সালে মাধ্যমিক পরীক্ষার লিখিত পরীক্ষা শুরু হয় ২রা ফেব্রুয়ারী, চলে ১২ই ফ্রেব্রুয়ারী পর্যন্ত। পরীক্ষার্থীরা ৯টা ৪৫ মিনিট থেকে বিভিন্ন ওয়েবসাইট এবং অ্যাপের মাধ্যমে তাদের ফলাফল জানতে পারবেন। মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সাংবাদিক সম্মেলন করে ফল ঘোষণা করবে সকাল ৯টা তারপর থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা সরাসরি পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে পরীক্ষার ফলাফল দেখতে পাবেন। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের wbbse.wb.gov.in এবং wbresults.nic.in গিয়ে ক্লিক করে রেজাল্ট দেখতে পাবেন মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা।

উদয়ন গুহকে পাঁচ কোটি টাকা চেয়ে হুমকি

Wednesday : উত্তরের হাওয়া, ২৪ এপ্রিল: কোচবিহারে ভোটের এক সপ্তাহ হয়নি। আর এর মধ্যেই উত্তরবঙ্গ উয়ন্নয়ন মন্ত্রী উদয়ন গুহর কাছে একটি হুমকি চিঠিকে এসেছে বলে খবর। যা নিয়ে চাঞ্চল্য জেলার রাজনৈতিক মহলে। কেএলও সংগঠনের তরফে এই হুমকি চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে খবর। উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী উদয়ন গুহকে হুমকি চিঠি দিয়েছে কেএলও-র। ১০ দিনের মধ্যে ৫ কোটি টাকা চেয়ে বুধবার সকালে একটি হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর থেকে ওই হুমকি চিঠি দেওয়া হয় উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রীকে। হুমকি চিঠির এই ঘটনায় কোচবিহারের রাজনৈতিক ও পুলিশ মহলে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। ইতিমধ্যেই বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী উদয়ন গুহ। এদিন তিনি জানান, সকালে হোয়াটসঅ্যাপে চিঠি এসেছে। আমি টাকা দিচ্ছি না। আমি ভয়ও পাচ্ছি না। তবে পুলিশ তদন্ত করলেই গোটা বিষয়টি পরিষ্কার হবে। চিঠিতে লেখা রয়েছে, গত ১৯৯৩ সাল থেকে তারা এই যুদ্ধ চালিয়ে আসছেন। তাদের সহযোগিতা করার জন্য আগামী ১০ দিনের মধ্যে ৫ কোটি টাকা দেওয়ার আবেদন জানানো হয়েছে। চিঠির বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই হইচই পড়ে গিয়েছে পুলিশ মহলে। তবে মন্ত্রী উদয়ন গুহকে এই হুমকি চিঠি পাঠানোর ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

ভোট পরবর্তী হিংসায় ফের শিরোনামে দিনহাটা

Saturday : উত্তরের হাওয়া দিনহাটা, ২০ এপ্রিল: ভোটের রেশ কাটতে না কাটতেই রাজনৈতিক হিংসায় ফের নাম জড়াল দিনহাটা বিধানসভার। শুক্রবার রাতে সংশ্লিষ্ট বিধানসভার কিশামতদশগ্রামের টিয়াদহে সক্রিয় তৃণমূল কর্মী সুকুমার মালির বাড়িতে ভাঙচুর ও ওই তৃণমূল কর্মীর বাবা নিবারন মালির দুই হাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করার অভিযোগ উঠছে বিজেপির বিরুদ্ধে। তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীর স্ত্রী হেমতি মালির অভিযোগ, গতকাল রাত ১১ টা নাগাদ বাড়িতে নাবালক ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে ছিলাম। স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। সেসময় বাড়ির টিনের চালে ক্রমাগত শিল ছোড়া হয়। ভয় পেয়ে পাশেই আত্মীয় বাড়িতে যাই। সেসময়ই বিজেপির লোকেরা বাড়িতে ভাঙচুর চালায়। শ্বশুর মশাই এগিয়ে আসতেই তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। তিনি হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তার সংযোজন, ঘরে থাকা সোনার গয়না ও টাকাও লুঠপাট হয়েছে। বাজনা বাজিয়ে সংসার চলে। সক্রিয়ভাবে তৃণমূল করার খেসারত দিতে হল। তৃণমূলের কিশামতদশগ্রাম অঞ্চল সভাপতি জগদীশচন্দ্র রায়ের মন্তব্য, বিজেপি ওখানে হারবে বলেই সক্রিয় ওই কর্মীকে টার্গেট করা হয়েছে। আমাদের দলীয় নেতৃত্বও এলাকায় যাবেন। যদিও বিজেপি নেতারা হিংসার ক্ষেত্রে বিজেপির যোগ অস্বীকার করেছেন ও তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলের জেরেই ঘটনা ঘটেছে বলে পাল্টা দাবী করেছেন। এদিকে ঘটনার জেরে এলাকায় গতকাল রাত থেকেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই ঘটনাস্হলে পৌছে পরিস্হিতি খতিয়ে দেখেছে পুলিশ। এরপর শনিবার আক্রান্ত তৃণমূল কর্মীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে সাহেবগঞ্জ থানার পুলিশ।

দেশ

এডিজি বিএসএফ গুয়াহাটি সীমান্তের অধীনে কোচবিহার আন্তর্জাতিক সীমান্তের অপারেশনাল প্রস্তুতির পর্যালোচনা

Friday : উত্তরের হাওয়া, ২৯ মার্চঃ শ্রী রবি গান্ধী, ADG, পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ড, বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের বিএসএফ গোপালপুর সেক্টর কোচবিহার সফরের সময়, ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমান্তে বর্তমান নিরাপত্তা পরিস্থিতি এবং বিএসএফ-এর অপারেশনাল প্রস্তুতি পর্যালোচনা করেন আজ। এডিজি বিএসএফ সেক্টর হেড কোয়ার্টার বিএসএফ গোপালপুর পরিদর্শন করেন যেখানে তাকে এলাকার বর্তমান নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জ, বাহিনীর অপারেশনাল প্রস্তুতি এবং ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার ব্যবস্থা সম্পর্কে অবহিত করা হয়। তিনি বিএসএফ-এর গোপালপুর ও কোচবিহার সেক্টরের দায়িত্বের এলাকায় বিদ্যমান নদীপথ এবং বেড়িবিহীন সীমান্তের পরিস্থিতিও খতিয়ে দেখেন। শ্রী রবি গান্ধী, ADG সীমান্ত পরিদর্শন করেছেন মোতায়েন করা বর্ডারম্যানদের সাথে মতবিনিময় করেন এবং চ্যালেঞ্জিং পরিবেশে সীমানা রক্ষায় তাদের অক্লান্ত প্রচেষ্টা এবং তাদের নিষ্ঠার প্রশংসা করেছেন।

গ্রেপ্তার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল

Thursday : উত্তরের হাওয়া, ২১মার্চ: ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে গ্রেপ্তার করেছে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রণালয়ের তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। মদ নীতি কেলেঙ্কারির অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ভারতের লোকসভা নির্বাচনের মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগে নয়াদিল্লির রাজনীতিতে এই ঘটনা ঘটল। আর স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে প্রথম ক্ষমতাসীন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে কেজরিওয়াল গ্রেপ্তার হয়েছেন। তার রাজনৈতিক দল আম আদমি পার্টি জানিয়েছে, গ্রেপ্তার হলেও কেজরিওয়াল দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে থাকবেন। সূত্রের খবর আজ সন্ধে ৬টা নাগাদ কেজরিওয়ালের বাড়িতে পৌঁছে যায় ইডি। তারপরই দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীকে জেরা শুরু করে তাঁরা। কেজরিওয়ালকে বারবার হেডকোয়ার্টারে নিয়ে যেতে চাইছিল ইডি। কিন্তু তাতে রাজি হননি অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এদিকে খবর পেয়েই কেজরিওয়ালের বাড়ির সামনে ভিড় করতে শুরু করেন আম আদমি পার্টির কর্মী সমর্থকরা। ২ ঘণ্টা কেজরিওয়ালকে জেরা করার পরেই তাকে গ্রেফতার করে ইডি।

ফিলিস্তিনের সমর্থনে কোচবিহারে ঐতিহাসিক শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিল

Friday : উত্তরের হাওয়া, ১৮ নভেম্বর: ফিলিস্তিনের নিপিড়িত মানুষের পক্ষে ও দখলদার অবৈধ রাষ্ট্র ইজরায়েল যেভাবে অনবরত ফিলিস্তিনের উপর হামলা চালাচ্ছে ও স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের দাবিতে কোচবিহারে এক ঐতিহাসিক শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। ফিলিস্তিনের বন্ধুকামী মানুষ হিসেবে মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলে শান্তিকামী মানুষদের উপস্থিতি জন প্লাবন তৈরি করে। উক্ত মিছিলে উপস্থিত ছিলেন নিরপেক্ষ প্রতিবাদী মঞ্চ তথা নিপ্রমের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাব্বির হোসেন, নিপ্রমের গঠনতন্ত্রের রচিয়তা কাউসার আলম ব্যাপারী, রাজনীতি বিদ সম্রাট হক, ও আব্বাস আলী। নিপ্রমের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাব্বির হোসেন বলেন _" আমরা অবিলম্বে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র চাই ও ইজরায়েলের দখলদারিত্ব বন্ধ হোক। ও আমেরিকা ও ব্রিটিশদের মদত পুষ্ট ইজরায়েল নিপাত যাক। ও আমাদের দেশের সরকার অবিলম্বে ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়াক।

রাজ্যে ফের ভূমিকম্প। কেঁপে উঠল আলিপুরদুয়ার

Wednesday : উত্তরের হাওয়া, ৮ নভেম্ভর: রাজ্যে আবারও ভূমিকম্প (Earthquake)! এবার ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল আলিপুরদুয়ার (Alipurduar) জেলা। বুধবার সকাল ১০:৫১ মিনিটে ভূমিকম্প অনুভূত হয়। ন্যাশনাল সেন্টার ফর সিসমোলজি সূত্রে খবর, রিখটার স্কেলে (Richter Scale) কম্পনের মাত্রা ৩.৬। শিলিগুড়িতেও (Siliguri) কম্পন অনুভূত হয়েছে বলে খবর। আলিপুরদুয়ার ছাড়াও অসমেও (Assam) ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। ওই রাজ্যের হাইলাকান্দিতে কম্পন অনুভূত হয়েছে। সেখানে এদিন সকাল ১০টা ৫৯ মিনিটে ৪.১ মাত্রার একটি কম্পন অনুভূত হয়েছে। উল্লেখ্য, শুক্রবার রাত ১১ টা ৪০ মিনিট নাগাদ দিল্লি-সহ পশ্চিমবঙ্গে (West Bengal) ভূমিকম্প অনুভূত হয়। সেই সময় কম্পনের তীব্রতা ছিল ৬.৪। ভূমিকম্পের উত্‍স স্থল ছিল নেপাল। যেটি লখনউ থেকে ২৫৩ কিলোমিটার দূরে এবং কলকাতা থেকে ৯২৫ কিলোমিটার দূরে। সেই ভূমিকম্পে নেপালে (Nepal Earthquake) ভয়াবহ ক্ষয়ক্ষতি হয়। মৃত্যু হয় দেড়শো জনেরও বেশি লোকের। প্রচুর ঘর-বাড়ি ভেঙে পড়ে। আর তার ঠিক চার দিনের মাথায় আবারও কেঁপে উঠল পশ্চিমবঙ্গ। বুধবার ভূমিকম্প অনুভূত হতেই আতঙ্কে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে আসেন বহু মানুষ। বারবার এই ধরনের ভূমিকম্পে রীতিমতো শঙ্কিত সকলেই। বিশেষজ্ঞরা দাবি করছেন, ভারতে আগামী দিনে ভয়ানক ভূমিকম্পের আশঙ্কা রয়েছে। কারণ, হিমালয়ের (Himalaya) নীচে ভূকম্পন বলয় সক্রিয় হয়ে উঠেছে। যার জেরে ভারতীয় পাতের সঙ্গে ইউরেশীয় পাতের সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। টেকটনিক প্লেটদের সংসারে লাগাতার অশান্তির কারণে দিল্লি বা উত্তর-পশ্চিম ভারত শুধু নয়, গোটা দেশেই ভয়ানক ভূমিকম্প হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বিশ্ব

খেলা

দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান দিনহাটা শহরে মিনি স্টেডিয়াম তৈরির কাজের সূচনা

Tuesday : উত্তরের হাওয়া, ২জানুয়ারি: দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান দিনহাটা শহরে মিনি স্টেডিয়াম তৈরির কাজের সূচনা হলো। মঙ্গলবার শহরের পাইওনিয়ার ক্লাব প্রাঙ্গনে মিনি স্টেডিয়াম তৈরির কাজে সূচনা করলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী উদয়ন গুহ। পাশাপাশি বয়েজ ক্লাব এলাকা থেকে চড়ক মেলা মাঠ পর্যন্ত হাইড্রেন তৈরির কাজের সূচনাও হয় এদিন। জানা গেছে প্রায় ১ কোটি ৫৮ লক্ষ ২৩ হাজার ৫৯৬ টাকা ব্যয়ে তৈরি হবে এই দুটি প্রকল্প উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের সহযোগিতায়। এদিনের অনুষ্ঠানে সেখানে মন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার সৌরভ ভট্টাচার্য, দিনহাটা পৌরসভার চেয়ারম্যান গৌরীশংকর মাহেশ্বরী, ভাইস চেয়ারম্যান সাবির সাহা চৌধুরী, পাইওয়নিয়ার ক্লাবের সভাপতি ডঃ অমল বসাক সহ আরো অন্যান্যরা। এদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মন্ত্রী উদয়ন গুহ জানান, ছয় মাসের মধ্যেই তৈরি হয়ে যাবে এই মিনি ইনডোর স্টেডিয়াম। খেলাধুলার বিভিন্ন রকম সুযোগ-সুবিধা মিলবে সেখানে। উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর এই মিনি স্টেডিয়াম পুরোপুরি ভাবে তৈরি করে দিলেও দেখভালের দায়িত্বে থাকবে ক্লাব কতৃপক্ষের এমনটাই তিনি জানিয়েছেন। বলা বাহুল্য, ১৯৮৮ সালে দিনহাটা শহর সংলগ্ন পুঁটিমারিতে স্টেডিয়াম তৈরির জন্য ৬ একর জমি কেনা হয়। তখন রাজ্যে বামফ্রন্ট সরকার। রাজ্যের যুব কল্যাণ দফতরের দেওয়া আর্থিক বরাদ্দে ওই জমি কেনা হয়। সরকারি নিয়ম মেনেই মহকুমা ক্রীড়া সংস্থা এবং দিনহাটা–১ পঞ্চায়েত সমিতির মালিকাধীন বলে জমির ‘দলিল’ তৈরি হয়।তারপর প্রায় ৩৪ বছরেরও বেশি সময়কেটে গিয়েছে। সীমানা পাঁচিল ছাড়া স্টেডিয়াম তৈরির কিছুই হয়নি। তা নিয়ে বিস্তর বিতর্ক হলেও কেউই সমস্যার সমাধান করতে পারেননি। আদৌ কি সেই স্টেডিয়াম তৈরি হবে সেই প্রশ্ন যখন ঘুরপাক খাচ্ছে বিভিন্ন মহলে ঠিক তখনই দিনহাটা শহরের বুকে মিনি স্টেডিয়াম গড়ে তোলার কাজের সূচনা হলো এদিন। পুটিমারি সংলগ্ন এলাকায় সেই স্টেডিয়ামের বিষয় নিয়ে এদিন মন্ত্রী উদয়ন গুহ কে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, স্টেডিয়াম আর মিনি স্টেডিয়ামের মধ্যে অনেকটাই পার্থক্য রয়েছে। সে সময় যারা সেখানে স্টেডিয়ামের পরিকল্পনা করেছিলেন সেই সময় হয়তো পরিকল্পনার খানিকটা খামতি ছিল। সেখানে গাড়ি পার্কিং, অ্যাপ্রোচ, প্রবেশ পথের কোনরকম চিন্তাভাবনা হয়নি। সব মিলিয়ে একটা ঘাটতি থেকে গেছে। তবে মিনি ইনডোর স্টেডিয়াম তৈরি ক্ষেত্রে সব কিছু ব্যবস্থায় থাকছে বলেও তিনি জানান। স্বাভাবিকভাবেই মিনি ইনডোর স্টেডিয়াম দিনহাটায় তৈরি হচ্ছে এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই বিভিন্ন মহলে খুশির হাওয়া এবং ক্রীড়া প্রেমীরা অত্যন্ত খুশি এমনটাই জানা গেছে।

তানিয়াকে সম্বর্ধনা দিল কোচবিহার ডিস্ট্রিক্ট স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশন

Tuesday : উত্তরের হাওয়া, ৪জুলাই: কোচবিহার ডিস্ট্রিক্ট স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে সম্বর্ধিত করা হয় ভারতীয় মহিলা ফুটবল দলের সদস্যা কুমারী তানিয়া কামতি কে। উল্লেখ্য দিনহাটার মেয়ে তানিয়া কামতি একজন অতি সাধারণ ট্যাক্সি ড্রাইভার এর মেয়ে। নিজের অধ্যবসায় ও সাধনার ফলে আজকে সে জাতীয় ফুটবল দলে স্থান পেয়েছে। বাংলাদেশের সদ্য সমাপ্ত সাফ কেমসে ভারতীয় মহিলা ফুটবল এর হয়ে অংশ নিয়েছিল তানিয়া কামতি। এই আন্তর্জাতিক স্তরের খেলায় তানিয়ার পারফরম্যান্স দিনহাটা কোচবিহার এমনকি পশ্চিমবাংলা তথা ভারতের মান উঁচু করে। আজ মঙ্গলবার বিকেল চারটায় কোচবিহারের স্টেডিয়াম সংলগ্ন ডিস্ট্রিক স্পোর্টস এসোসিয়েশনের সভাকক্ষে তাকে ডিস্ট্রিক্ট স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে সংবর্ধিত করা হয়। এই মহতী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিস্ট্রিক স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক সুব্রত দত্ত। সহ-সভাপতি অমলেশ সরকার, সহ-সভাপতি তপন ঘোষ এবং সহ-সভাপতি অশোক হাজরা।

রাজনীতি

ভোট পরবর্তী হিংসায় ফের শিরোনামে দিনহাটা

Saturday : উত্তরের হাওয়া দিনহাটা, ২০ এপ্রিল: ভোটের রেশ কাটতে না কাটতেই রাজনৈতিক হিংসায় ফের নাম জড়াল দিনহাটা বিধানসভার। শুক্রবার রাতে সংশ্লিষ্ট বিধানসভার কিশামতদশগ্রামের টিয়াদহে সক্রিয় তৃণমূল কর্মী সুকুমার মালির বাড়িতে ভাঙচুর ও ওই তৃণমূল কর্মীর বাবা নিবারন মালির দুই হাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করার অভিযোগ উঠছে বিজেপির বিরুদ্ধে। তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীর স্ত্রী হেমতি মালির অভিযোগ, গতকাল রাত ১১ টা নাগাদ বাড়িতে নাবালক ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে ছিলাম। স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। সেসময় বাড়ির টিনের চালে ক্রমাগত শিল ছোড়া হয়। ভয় পেয়ে পাশেই আত্মীয় বাড়িতে যাই। সেসময়ই বিজেপির লোকেরা বাড়িতে ভাঙচুর চালায়। শ্বশুর মশাই এগিয়ে আসতেই তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। তিনি হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তার সংযোজন, ঘরে থাকা সোনার গয়না ও টাকাও লুঠপাট হয়েছে। বাজনা বাজিয়ে সংসার চলে। সক্রিয়ভাবে তৃণমূল করার খেসারত দিতে হল। তৃণমূলের কিশামতদশগ্রাম অঞ্চল সভাপতি জগদীশচন্দ্র রায়ের মন্তব্য, বিজেপি ওখানে হারবে বলেই সক্রিয় ওই কর্মীকে টার্গেট করা হয়েছে। আমাদের দলীয় নেতৃত্বও এলাকায় যাবেন। যদিও বিজেপি নেতারা হিংসার ক্ষেত্রে বিজেপির যোগ অস্বীকার করেছেন ও তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলের জেরেই ঘটনা ঘটেছে বলে পাল্টা দাবী করেছেন। এদিকে ঘটনার জেরে এলাকায় গতকাল রাত থেকেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই ঘটনাস্হলে পৌছে পরিস্হিতি খতিয়ে দেখেছে পুলিশ। এরপর শনিবার আক্রান্ত তৃণমূল কর্মীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে সাহেবগঞ্জ থানার পুলিশ।

কোচবিহারে যাবেন না বোসকে অনুরোধ নির্বাচন কমিশনের

Wednesday : উত্তরের হাওয়া, ১৭এপ্রিল: উত্তরবঙ্গে নির্বাচন চলার সময় রাজ্যপালকে সেখানে না যাওয়ার পরামর্শ দিল নির্বাচন কমিশন। তারা জানিয়েছে, নির্বাচনের দিন রাজ্যের রাজ্যপাল যদি নির্বাচনক্ষেত্রে উপস্থিত থাকেন, তবে তা ভোটের আদর্শ আচরণ বিধি ভাঙবে। প্রসঙ্গত, শুক্রবারই প্রথম দফার নির্বাচন হবে উত্তরবঙ্গের তিন লোকসভা কেন্দ্র-জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারে।রাজ্যপাল জানিয়েছিলেন, ভোট চলাকালীন তিনি নিজে কোচবিহারে থাকবেন। সরেজমিনে খতিয়ে দেখবেন এলাকার পরিস্থিতি। তবে কমিশন জানিয়ে দিল ভোটের আদর্শ আচরণ বিধি এর ফলে লঙ্ঘিত হবে।

উদয়নকে গৃহবন্দী রাখার আর্জি নিশীথের

Wednesday : উত্তরের হাওয়া, দিনহাটা, ১৭ এপ্রিল: শান্তিপূর্ণ ও অবাধ ভোট করতে ভোটের দিন দিনহাটার বিধায়ক তথা উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী উদয়ন গুহকে গৃহবন্দী রাখার দাবী তুললেন বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক । নির্বাচন কমিশনের কাছে চিঠি দিয়ে এই আর্জি জানিয়েছেন তিনি। কমিশনকে দেওয়া চিঠিতে নিশীথ লিখেছেন, ‘আপনারা জানেন যে উদয়ন গুহই যাবতীয় গুন্ডামির মূল। নির্বাচনি আদর্শ আচরণবিধি চালু থাকা সত্ত্বেও প্রশাসনের অনুমতিক্রমে করা র‌্যালিতেই আমাকে দু’বার আক্রমণ করেছেন।’ পাশাপাশি ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটের পর অশান্তির প্রসঙ্গ উদাহরণ হিসাবে তুলে ধরে উদয়নকে শান্তির পক্ষে ক্ষতিকারক বলে প্রমান করার চেষ্টা করেছেন তিনি। নিশীথের অভিযোগ, উদয়ন গুহর নেতৃত্বে বারবার কোচবিহারে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা হয়েছে। ভোটের দিনও একইরকমভাবে সন্ত্রাস হতে পারে। উদয়ন গুহ যাতে তাঁর বুথের বাইরে বের হতে না পারেন তা দেখুক কমিশন । তাঁর সংযোজন, লোকসভা নির্বাচনের প্রচার বিগত দিনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে উদয়ন গুহ বিভিন্ন উসকানিমূলক বক্তব্য রেখেছেন। এতে কর্মীরা প্ররোচিত হয়ে গন্ডগোল করতে পারে। গত ২০২১ সালে বিধানসভা নির্বাচনের ফল বেরোনোর পর যে পোস্ট পোল ভায়োলেন্স হয়েছিল তাতে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন যে দুষ্কৃতীদের নাম উল্লেখ করেছিল তাতে উদয়ন গুহর নাম ছিল। তাই শান্তিতে ভোট করানোর লক্ষ্যে ভোটের দিন তাঁর বুথের মধ্যে তাঁকে রাখা হোক। বিষয়টি নিয়ে বিজেপি বিধায়ক মিহির গোস্বামী সাংবাদিক বৈঠক করে একধাপ এগিয়ে উদয়ন গুহকে গৃহবন্দি করার দাবি জানিয়েছেন। যদিও বিষয়টি নিয়ে তীব্র কটাক্ষ করেছেন উদয়ন। তাঁর বক্তব্য, নির্বাচন কমিশনকে কাজে লাগিয়ে ভোট বৈতরণী পার হতে চাইছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। মানুষের পাশে থেকে সবসময় কাজ করেন বলে জানান উদয়ন। মানুষও তাঁকে চায়। তাই ভয় পেয়েছেন নিশীথ প্রামাণিক। এসব করে কোনও লাভ হবে না। মানুষের অধিকার মানুষই বুঝে নেবেন। আমি ঘরে বসে থাকলেও মানুষ যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার নিয়ে নিয়েছে।

জগদীশের প্রার্থী পদ বাতিলের আর্জি বিজেপির

Wednesday : উত্তরের হাওয়া, কোচবিহার, ১৭ এপ্রিল: নির্বাচন কমিশনে জমা করা হলফনামায় স্ত্রীকে নিয়ে ভুল তথ্য দিয়েছেন কোচবিহার লোকসভার তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী জগদীশচন্দ্র বর্মা বসুনীয়া। তাই তার মনোনয়ন বাতিল করা হোক। এমনই দাবী জানিয়ে জাতীয় নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়েছেন বিজেপি নেতা তথা কোচবিহার জেলা সম্পাদক জেলা অজয় রায়। বুধবার সাংবাদিক বৈঠক করে জানালেন বিজেপি বিধায়ক মিহির গোস্বামী । বিজেপি নেতৃত্বের অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী তাঁর হলফনামায় জানিয়েছেন যে, তাঁর স্ত্রীর নাম শুকতারা বর্মা বসুনিয়া। অন্যদিকে, সিতাই পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তথা তৃণমূল প্রার্থীর স্ত্রী সংগীতা রায় বসুনিয়া তাঁর হলফনামায় জানিয়েছেন যে, তাঁর স্বামী জগদীশচন্দ্র বর্মা বসুনিয়া। স্বভাবতই তৃণমূল প্রার্থীর দেওয়া তথ্য ভুল রয়েছে বলে দাবী তৃণমূলের । তাই তার মনোনয়ন বাতিলের দাবী তুলেছেন তারা। পাল্টা কটাক্ষ করে তৃণমূল কংগ্রেস জেলা সভাপতি অভিজিত দে ভৌমিকের মন্তব্য, মনোনয়ন জমা পড়েছে প্রায় ১৫ দিন আগে, এতদিন কি বিজেপি নেতারা চোখ বন্ধ করেছিলেন? অভিযোগ করার হলে তখন করেননি কেন? নিজেদের পায়ের তলার মাটি নেই তাই উল্টোপাল্টা দাবি করছে।

রাশিফল

লাইফস্টাইল




Follow us on                  

About Us
uttorerhawa, a pioneering digital platform, is revolutionizing the way citizens access news, information, and services.
Contact Us
Address : Dinhata, Cooch Behar
Call : 7076088024
WhatsApp : 7076088024
Email : uttorerhawa1985@gmail.com
Important Link
  • Disclaimer
  • Privacy Policy

  • Total Visitor : 270400